এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা ঘোষিত সময়ে হচ্ছে না

পিছিয়ে যাচ্ছে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা। করোনার কারণে গত বছর এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে এ বছর সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে এ পরীক্ষা পিছিয়ে যথাক্রমে আগামী জুন ও আগস্ট মাসে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সেজন্য এসএসসির ৬০ দিন ও এইচএসসি ৮৪ দিন ক্লাস ধরে পরিমার্জিত সংক্ষিপ্ত সিলেবাসও প্রকাশ করেছে শিক্ষাবোর্ড। সম্প্রতি ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে এমনটি ধরেই এ ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী। তবে, সরকারি বেসরকারি সব বিশ্ববিদ্যালয় আগামী ২৪ মের পর খোলা হবে এমন ঘোষণার

মাত্র পাওয়াঃ ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা ভাবছে সরকার!

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় লেখা পড়া বিঘ্নিত হচ্ছে, এ বিষয়ও সরকারকে ভাবতে হচ্ছে। আবার একজন শিক্ষার্থীর জীবন নিয়েও সরকারকে গভীরভাবে ভাবতে হচ্ছে। কারণ, এখনও পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকির মধ্যেই রয়েছে দেশ। এখন হয়তো অনেকেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার কথা বলছেন। কিন্তু খুলে দেওয়ার পর শিক্ষার্থীরা আক্রান্ত হলে তখন সরকারের ওপরই দায় দেওয়া হবে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতাদের মতে, করোনার প্রাদুর্ভাব অনেকটাই কমে এসেছে, ধারণা করা হচ্ছে আগামী কিছু দিনের মধ্যে আরও কমে আসবে।

বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে ঈদের পর

পবিত্র ঈদুল ফিতরের পর আগামী ২৪ মে থেকে দেশের পাবলিক, প্রাইভেট এবং বিশেষায়িত সব ধরনের বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এছাড়া ১৭ মে থেকে আবাসিক হল খুলে দেয়া হবে। সোমবার দুপুরে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। তিনি বলেন, ১৭ মে এর আগে কোন শিক্ষার্থী হলে অবস্থান করতে পারবেন না। এসময় শিক্ষার্থীদের টিকা না দিয়ে হলে নিয়ে আসাটা বিপদজনক বলেও মন্তব্যও করেন তিনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সব শ্রেণিকক্ষ খোলার

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দ্রুত খোলা যায় কিনা দেখতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুব দ্রুত খুলে দেওয়া যায় কিনা তা যাচাই করতে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে স্কুল-কলেজ খোলার আগে শিক্ষক-কর্মচারীদের ভ্যাকসিন দিতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন। আজ সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রিপরিষদের নিয়মিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশনা দেন। সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ কথা জানান। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নিয়ে বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরা সচিবালয় থেকে বৈঠকে অংশ নেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে হল খোলার

হল খোলা ও সরাসরি ক্লাস শুরুর তারিখ জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামী ১৭ মে থেকে হল খুলে দেওয়া হবে। আর ২৪ মে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রেণিকক্ষে সরাসরি অংশগ্রহণের মাধ্যমে পাঠদান শুরু হবে। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আজ সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) এই তথ্য জানিয়েছেন। ভার্চুয়াল মাধ্যমে প্রেস ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রী জানান, সরকারি-বেসরকারি সব বিশ্ববিদ্যালয় খোলার আগে সব শিক্ষক ও শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে। তিনি আরও জানান, খুলে দেওয়ার জন্য সব বিশ্ববিদ্যালয়েরই প্রস্তুতি নিতে হবে। প্রয়োজনে হলের অবকাঠামো সংস্কার করবেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ভার্চুয়াল এ প্রেস ব্রিফিংয়ে

আব্বা-আম্মা বলছিলেন, বউকে বেশি পড়াইলে উড়াল দিয়ে চলে যাবে: রাকিব

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি গায়ে হলুদ ও ১৯ ফেব্রুয়ারি হয়েছে বিবাহোত্তর সংবর্ধ’নাও। এরই মধ্যে অ’ভিযোগ উঠেছে আগের স্বা’মীকে তালাক না দিয়েই নাসিরকে বিয়ে করেছেন স্ত্রী’ তামিমা তাম্মি। আজ শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে রাইসা ইস’লাম বাবুনি নামক এক ফেসবুক ব্যবহারকারীর একটি পোস্ট ভাই’রাল হয়েছে। সেই পোস্টে তামিমা’র স্বা’মী রাকিবের পক্ষে দাবি করা হয়েছে, এখনও তাদের মধ্যে বৈবাহিক সম্প’র্ক রয়েছে। তাদের ঘরে রয়েছে ৮ বছর ব’য়সী একটি মে’য়ে স’ন্তানও। রাকিব জানান, প্রে’ম করে বিয়ে করেছিলাম। সে আসলে আমাকে

যে কারণে স্বামী-সন্তান ছেড়ে নাসিরকে বিয়ে করেছে তামিমা

জাতীয় দলের আ’লোচিত ক্রিকেটার নাসির হোসেন গত রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিয়ে করেছেন। তার বিয়ের পর থেকেই স্ত্রী’ তামিমাকে নিয়ে বের হচ্ছে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। এবার তামিমা’র সাবেক স্বামী রাকিব জানালেন কি কারণে স্বামী সন্তানকে ছেড়ে নাসিরকে বিয়ে করেছে তামিমা। শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) তামিমা’র সাবেক স্বামী রাকিব গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন কি কারণে তামিমা স্বামী-সন্তানকে ছেড়ে নাসিরকে বিয়ে করেছেন। নাসিরের সঙ্গে তামিমা’র বিয়ের এগারো বছর আগে অন্য জায়গায় বিয়ে হয় তামিমা’র। সেই ঘরে আট বছরের একটি

বাবা-মায়ের যেসব ভুলের কারণে সন্তান প্রতিবন্ধী হয়ে জন্ম নেয়

বাবা-মায়ের যেসব ভুলের কারণে সন্তান প্রতিবন্ধী হয়ে জন্ম নেয় – বাবা মায়ের সামান্য একটু ভুলের কারণে তার সন্তানকে আজীবনের জন্য কষ্ট করতে হয় এবং নিন্দা বইতে হয়। অনেক প্রতিবন্ধী শিশু আছে যাদের জন্য তার বাবা মায়ের আজীবন চোখের পানি ফেলতে হয়। কিন্তু যদি একটু সতর্ক হওয়া যায় এবং কিছু নিয়ম নিতি মেনে চলা হয় তবেই এই অভিশাপ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তাই আজ আপনার ডক্টর আপনাদের জন্য নিয়ে এলো বাবা মায়ের যে ভুলের কারণে অনেক

যারা বাচ্চাকে সাড়ে ৩-৪ বছরে স্কুলে দিবেন ভাবছেন, তাদের জন্য খুবই জরুরী এই পোস্ট

আমাদের দেশের স্কুল মানেই একেবারে সিরিয়াস লেখাপড়া। আর আপনারা এখন খেলার ছলে শিখাচ্ছেন তাই শিখছে।স্কুল মানেই ৩টা সাবজেক্ট।যেগুলার ডেইলি হোম ওয়ার্ক থাকবে।ডেইলি স্কুলে লিখাবে।এরপর কিছুদিন পরপর পরীক্ষা!! এরপর বাচ্চাদের স্কুলের & পড়ালেখার প্রতি এক ধরনের অনিহা চলে আসে। এরপর বাচ্চা যখন অনিহা দেখাবে তখন শুরু করবেন মা’রামা’রি!!আবার স্কুলও শুরু কবে বাচ্চার রেজাল্ট ভালো হচ্ছে না এইসব কথাবার্তা। ঢাকা শহরের ৮ বছর স্কুলে যাওয়া আশা + নিজের টিচিং অ’ভিগ্যতা থেকেই বলছি। এরপর মা হতাশ,বাবা,হতাশ,বাচ্চা আরো হতাশ।এই

শিক্ষকদের ৯টা-৩টা বিদ্যালয়ে থাকার বিষয়টি খোলাসা করলেন সচিব

ছুটি চলাকালে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ সব শিক্ষককে বিদ্যালয়ে সকাল ৯টা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত বসে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। তবে বিদ্যালয় খোলার উপযোগী করা এবং অভিভাবকদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পাঠ্যবই পড়ার বিষয়টি প্রধান শিক্ষক নিশ্চিত করবেন। পরীক্ষা পেছানোর দাবিসহ কয়েকটি দাবি জানাতে মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতির নেতাদের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব গোলাম মো. হাসিবুল আলম এ কথা জানান। সচিবের সঙ্গে বৈঠকে সহকারী শিক্ষক সমিতির ঢাকা মহানগর আহবায়ক