শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়লো

করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আরেক দফায় বাড়ানো হয়েছে। রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। কওমি মাদ্রাসা ছাড়া সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। তবে ছুটি চলাকালে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর আজ রবিবার

এইমাত্র পাওয়াঃ ছুটি আরও ৩০ দিন বাড়ছে

করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এ ছুটি আবারও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে। ছুটি আরও ১৫ দিন নাকি ৩০ দিন বাড়ানো হবে সে বিষয়ে রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ঘোষণা দেয়া হবে বলে জানা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানোর বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তিনি চলমান ছুটি আরও বাড়াতে ইঙ্গিত দিয়েছেন। এ কারণে আগামী ১৫ বা ৩০ দিন নতুন করে ছুটি

ব্রেকিং নিউজঃ আবারো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বৃদ্ধির ঘোষণা দেওয়া হয়েছে

বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও কোচিং সেন্টারের চলমান ছুটির মেয়াদ আবারো বাড়ছে। যে কোনো সময় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ দপ্তর থেকে ছুটি বাড়িয়ে ঘোষণা আসবে।আগের ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ছুটি রয়েছে। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ ২০২০ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর গত ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর সেই ছুটি ১৪ ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত করা হয়। ছুটি চলাকালে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম চলমান

এইমাত্র জানা গেল স্কুল কলেজ খোলার পর সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ক্লাস-পরীক্ষা হবে

২০২১ সালে এসএসসি-এইচএসসির আদলে একইভাবে প্রাথমিক পর্যায়েও সংক্ষিপ্ত সিলেবাস করে ক্লাস-পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেক্ষেত্রে চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। ইতিমধ্যে স্কুল খুললে ডিসেম্বর পর্যন্ত কতটুকু সিলেবাস পড়ানো যাবে তার ওপর সংক্ষিপ্ত সিলেবাস করতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর এবং জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমিকে (নেপ) নির্দেশ দিয়েছিল মন্ত্রণালয়। নেপ সে আলোকে একটি গাইড লাইন তৈরি করে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডকে (এনসিটিবি) পাঠিয়েছে। আর এনসিটিবি সে গাইড লাইন অনুযায়ী কাজ শুরু

পরীক্ষায় ফল খারাপ হওয়ায় প্রেমিকাকে দায়ী করে লেখাপড়ার খরচ ফেরত চাইল প্রেমিক

পরীক্ষায় খারাপ ফল করেছেন। এর জন্য প্রেমিকাকে দায়ী করলেন ২১ বছর বয়সী এক যুবক। বললেন, প্রেমিকার স’ঙ্গে প্রেম করতে গিয়ে তিনি খারাপ ফল করেছেন। এ জন্য পুরো পড়াশোনায় যে খরচ হয়েছে তা পরিশোধ করতে হবে প্রেমিকাকেই। এ ছাড়া ওই প্রেমিকাকে তিনি ভীতি প্রদর্শন করেছেন। এমন সব অ’ভিযোগে তার প্রেমিকা পু’লিশের কাছে হাজির হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের আওর’ঙ্গবাদে। সেখানে ব্যাচেলর অব হোমিওপ্যাথিক মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি (বিএইচএমএস) পড়াশোনা করেন ২১ বছর বয়সী ওই যুবক। তার বাড়ি বীড

প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ থাকলেও বাড়িতে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হবে

করোনাভাইরাসের সংক্রমন থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার জন্য আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সকল ধরনের সরকারি, বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেন (কেজি) স্কুলের চলমান ছুটি বাড়ানো হয়েছে। এ সময়ে নিজেদের এবং অন্যদের করোনাভাইরাসের সংক্রমন থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করবে। তবে এসময় পড়াশোনা চালিয়ে যেতে বলেছে সরকার। রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রাধনমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ কর্তৃক সময়ে

বিয়ে বাড়িতে আ’গুন, মন্ত্রী-মেয়রের উপস্থিতিতে নেভালো ফায়ার সার্ভিস

‘বিয়েবাড়িতে’ উপস্থিত বর-কনেসহ বেশ কয়েকজন আত্মীয়। এমন সময় সেখানে আ’গু’ন লাগল। এরপর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হলে তারা এসে দ্রুত দক্ষতার সঙ্গে সেই আ’গু’ন নি’ভি’য়ে ফে’লে। এমন দৃশ্যই তৈরি করা হয়েছিল জাতীয় দু’র্যোগ প্রস্তুতি দিবস ২০২১ উপলক্ষে আয়োজিত মহ’ড়ায়। এতে উপস্থিত ছিলেন দু’র্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মোঃ আতিকুল ইস’লামসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। আজ শনিবার বেলা সাড়ে এগারটায় রাজধানীর কড়াইলে ভূ’মিক’ম্প ও অ’গ্নিকা’ণ্ড স’চে’তনতা মহড়া অনুষ্ঠিত

সাফল্য পেলেন বিয়ের জন্য অনশনে বসা প্রে’মিক

আট বছরের প্রে’ম ফিরে পেতে অনশন ধ’র্মঘটে বসেছিল প্রে’মিক। প্রায় ২৪ ঘণ্টার অবস্থান শেষে এল সাফল্য। পুরনো প্রে’মিককেই বিয়ে করলেন প্রে’মিকা। সাফল্য পেল প্রে’ম। বিয়ে হল ওই যুবক-যুবতীর প্রে’ম ফিরে পেতে ধ’র্মঘটে বসা প্রে’মিকের নাম অনন্ত বর্মণ। আর প্রে’মিকার নাম লিপিকা বর্মণ। ভা’রতের পশ্চিমবঙ্গের ধূপগুড়ির সারদা পল্লীর কলেজ পাড়া এলাকার লিপিকার বাড়ির সামনে সোমবার সকালে ধ’র্মঘটে বসেন প্রে’মিক অনন্ত বর্মণ। অনন্তকে সরাতে ঘটনাস্থলে গিয়েছিল পু’লিশ। সেই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়তে খুব বেশি সময় নেয়নি। বিভিন্ন

‘শরম দিয়া অইবে কি, স্বামীর বিপদে পাশে না থাকলে কেমন ভালোবাসা’

ভালোবাসা শব্দটির সঙ্গে ছোট-বড় সবাই পরিচিত। এ এমনই এক স’ম্পর্ক যে স’ম্পর্ক বলে কয়ে আসে না, আবার কখন ছিন্ন হয় তাও বোঝা যায় না। জলিল হাওলাদার বয়স ৫০ ছুঁই ছুঁই। তার স্ত্রী’ তাসলিমা বেগম। এ দম্পতির দুই সন্তান রয়েছে। একটি ছে’লে ও একটি মেয়ে। সুখে-শান্তিতে চলছিলো তাদের সংসার। কিন্তু আচ’মকাই বিষাদ নেমে আসে তাদের সুখের সংসারে। এরপর থেকে সুখ নামক পাখিটি উড়ে যায় তাদের কপাল থেকে। সম্প্রতি বরগুনার পাথরঘাটায় পৌর শহরের উকিল পট্টিতে চোখে পড়ে

মিশা দেখা করতে যাওয়ায় মেডিকেলে পড়া হয়নি স্ত্রী’ মিতার

সিনেমা’র পর্দায় তিনি খল অ’ভিনেতা, নায়কের প্রে’ম আর প্রে’মিকা নিয়েই তাঁর যত ঝামেলা। যাঁর কথা বলা হচ্ছে, তিনি ঢাকাই সিনেমা’র শীর্ষ খলনায়ক মিশা সওদাগর। অথচ এই অ’ভিনেতা বাস্তব জীবনে একজন তুখোড় প্রে’মিক। তাঁর প্রে’মকাহিনি যেকোনো সিনেমা’র গল্পকেও হার মানাতে বাধ্য। আজ বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এমন দিনে মিশা সওদাগরের ভালোবাসার গল্প শোনা যাক। বিয়ের আগে ১০ বছর চুটিয়ে প্রে’ম করেছেন মিশা। প্রে’মের যখন শুরু তখন মিশা ম্যাট্রিক (এসএসসি) পরীক্ষার্থী। আর স্ত্রী’ মিতা পড়তেন নবম শ্রেণিতে। মিশা