প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা নিয়ে সর্বশেষ তথ্য জানালেন প্রতিমন্ত্রী

দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয় দ্রুত খুলে দেয়ার বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক করার কথা জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে অচিরেই প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন, সারাবিশ্বের অনেকে করোনার টিকা পাইনি, আমরা পেয়েছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমাদের টিকা নেয়া এখন শেষ প্রায়। তাই আমরা খুব সম্ভব

মাত্র পাওয়াঃ কবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে তারিখ ঘোষণা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

আগামী ৩০ মার্চ থেকে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। করোনাভাইরাসের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক শেষে এ তথ্য জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শিক্ষামন্ত্রীর সভাপতিত্বে বৈঠকে কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগে নতুন সুপারিশ

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গ্রন্থাগারিক ও কর্মচারী নিয়োগে অনিয়ম-দুর্নীতি ঠেকাতে পরিচালনা কমিটির হাতে নিয়োগের ক্ষমতা না রাখার সুপারিশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর। নিয়োগে বা অব্যাহতির ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা আনতে আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষ গঠনের সুপারিশও করা হয়েছে। বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আয়-ব্যয়ে স্বচ্ছতা আনতে প্রতিবছর পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের (ডিআইএ) মাধ্যমে নিরীক্ষার ব্যবস্থা করা এবং প্রয়োজনে ডিআইএ’র জনবল বাড়াতেও বলা হয়েছে। সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন সুপারিশ বাস্তবায়নের বিষয় জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, ‘ডিআইএর জনবল বাড়ানোর

মাত্র পাওয়াঃ রমজানে বন্ধ থাকবে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

আগামী রোজার সময়ও দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খোলা থাকবে। তবে ঈদের সময় কয়েকদিন ছুটি দেয়া হবে। শনিবার সন্ধ্যায় আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, আগামী ৩০ মার্চ থেকে খুলে দেয়া হবে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে প্রাক-প্রাথমিক আপাতত খুলবে না। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে এই আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল

শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

মূল ধারার শিক্ষা ব্যবস্থার পাশাপাশি সফট স্কিল বা নরম (সৃজনশীল) দক্ষতা না থাকায় দেশে শিক্ষিত বেকার বাড়ছে। এ ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনতে আন্তঃমন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানকে সঙ্গে নিয়ে কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা চেম্বার আয়োজিত এক ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এসব কথা বলেন। ‘ইন্ডাস্ট্রি-অ‌্যাকাডেমিয়া লিঙ্কেজ: দ্য নিউ প্রন্টিয়ার’ শীর্ষক সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেছেন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যায় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহদুল্লাহ। অনুষ্ঠান

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়ে সভা আজ

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কমায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পরিস্থিতি আছে কি-না তা পর্যালোচনার নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ শনিবার আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা ডেকেছে। সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পরিস্থিতি নিয়ে আজ বৈঠকে আলোচনা করা হবে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর পরামর্শ ও সার্বিক বিষয় চিন্তা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা ঘোষিত সময়ে হচ্ছে না

পিছিয়ে যাচ্ছে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা। করোনার কারণে গত বছর এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে এ বছর সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে এ পরীক্ষা পিছিয়ে যথাক্রমে আগামী জুন ও আগস্ট মাসে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সেজন্য এসএসসির ৬০ দিন ও এইচএসসি ৮৪ দিন ক্লাস ধরে পরিমার্জিত সংক্ষিপ্ত সিলেবাসও প্রকাশ করেছে শিক্ষাবোর্ড। সম্প্রতি ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে এমনটি ধরেই এ ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী। তবে, সরকারি বেসরকারি সব বিশ্ববিদ্যালয় আগামী ২৪ মের পর খোলা হবে এমন ঘোষণার

মাত্র পাওয়াঃ ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা ভাবছে সরকার!

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় লেখা পড়া বিঘ্নিত হচ্ছে, এ বিষয়ও সরকারকে ভাবতে হচ্ছে। আবার একজন শিক্ষার্থীর জীবন নিয়েও সরকারকে গভীরভাবে ভাবতে হচ্ছে। কারণ, এখনও পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকির মধ্যেই রয়েছে দেশ। এখন হয়তো অনেকেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার কথা বলছেন। কিন্তু খুলে দেওয়ার পর শিক্ষার্থীরা আক্রান্ত হলে তখন সরকারের ওপরই দায় দেওয়া হবে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতাদের মতে, করোনার প্রাদুর্ভাব অনেকটাই কমে এসেছে, ধারণা করা হচ্ছে আগামী কিছু দিনের মধ্যে আরও কমে আসবে।

বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে ঈদের পর

পবিত্র ঈদুল ফিতরের পর আগামী ২৪ মে থেকে দেশের পাবলিক, প্রাইভেট এবং বিশেষায়িত সব ধরনের বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এছাড়া ১৭ মে থেকে আবাসিক হল খুলে দেয়া হবে। সোমবার দুপুরে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। তিনি বলেন, ১৭ মে এর আগে কোন শিক্ষার্থী হলে অবস্থান করতে পারবেন না। এসময় শিক্ষার্থীদের টিকা না দিয়ে হলে নিয়ে আসাটা বিপদজনক বলেও মন্তব্যও করেন তিনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সব শ্রেণিকক্ষ খোলার

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দ্রুত খোলা যায় কিনা দেখতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুব দ্রুত খুলে দেওয়া যায় কিনা তা যাচাই করতে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে স্কুল-কলেজ খোলার আগে শিক্ষক-কর্মচারীদের ভ্যাকসিন দিতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন। আজ সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রিপরিষদের নিয়মিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশনা দেন। সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ কথা জানান। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নিয়ে বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরা সচিবালয় থেকে বৈঠকে অংশ নেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে হল খোলার