যে কারণে স্বামী-সন্তান ছেড়ে নাসিরকে বিয়ে করেছে তামিমা

জাতীয় দলের আ’লোচিত ক্রিকেটার নাসির হোসেন গত রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিয়ে করেছেন। তার বিয়ের পর থেকেই স্ত্রী’ তামিমাকে নিয়ে বের হচ্ছে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। এবার তামিমা’র সাবেক স্বামী রাকিব জানালেন কি কারণে স্বামী সন্তানকে ছেড়ে নাসিরকে বিয়ে করেছে তামিমা।

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) তামিমা’র সাবেক স্বামী রাকিব গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন কি কারণে তামিমা স্বামী-সন্তানকে ছেড়ে নাসিরকে বিয়ে করেছেন।

নাসিরের সঙ্গে তামিমা’র বিয়ের এগারো বছর আগে অন্য জায়গায় বিয়ে হয় তামিমা’র। সেই ঘরে আট বছরের একটি মে’য়ে সন্তানও রয়েছে। কিন্তু স্বামীকে তালাক না দিয়েই ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা!

রাকিব সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমাদের বিয়ের একটা সময় আমা’র শাশুড়ি আমা’র স্ত্রী’কে বুদ্ধি দেওয়া শুরু করল যে, তুমি এখন এয়ার হোস্টেজ; আর তোমা’র স্বামী একটা শো রুমের ম্যানেজার। তোমাদের স্ট্যাটাস তো মিলে না। এভাবেই আস্তে আস্তে তামিমা দুইদিক ঠিক রাখতে লাগল। তার একটা বয়ফ্রেন্ডও ছিল; নাম অলক। আমি বিষয়টা জানতে পেরে তাকে সাবধান করি। এরপর সে আমা’র কাছে মাফ চেয়ে বলে, ওর সাথে ব্রেকআপ হয়ে গেছে। এমন আর হবে না। আমিও মে’য়ের মুখের দিকে তাকিয়ে তাকে মাফ করে দেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘এসব ঘটনার পর থেকে তার মা আমাকে সহ্য করতে পারছিল না। আমি উপায় না দেখে মে’য়েকে তার কাছে রেখেই আলাদা বাসা নিলাম। সকাল-সন্ধ্যা মে’য়েকে গিয়ে দেখে আসতাম। ও চাকরি থেকে আসলে ওর মায়ের বাসায় উঠত। আমা’র বাসাতেও আসত। আম’রা হোটেলে মিট করতাম, রেস্টুরেন্টে খেতাম, আমা’র ভাইয়ের বাসায় যাইতাম। আমা’র বাসায় এসে থাকত আমা’র সাথে। লকডাউনের আগে সে ১৫ দিনের ছুটিতে দেশে আসল। তখন তার মা তাকে বের হতে দিত না। মে’য়েটা ফোন করলে বলত, ব্যস্ত। আমা’র বা তার মে’য়ের প্রতি তার কোনো ফিলিংস ছিল না।’

তিনি আরও জানায়, ‘এভাবে চলতে চলতে এক সময় ১৪ তারিখ দেখি তার একটা বিয়ের ভিডিও ক্লিপ। সে কবে দেশে আসছে তাও জানি না। আমি তো ভিডিও দেখে অ’বাক! এটা নিয়ে আমি ১৬ তারিখে একটা জিডি করলাম। জিডি করার পরে এইটা সবাই জানতে পারল। তখন আমা’র ভাইকে নিয়ে একজন সাংবাদিক আমা’র শাশুড়ির বাসায় গিয়েছিল। তখন তিনি বলেন, ‘রাকিব কে? আমি কোনো রাকিবকে চিনি না।’ সাংবাদিক ছবি দেখানোর পর তিনি নাসিরকে কল করেন। এরপর নাসির আমাকে ফোন করে। সেই অডিও ক্লিপ আমি মিডিয়ায় দিয়েছি।’

এ বিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ নিচ্ছেন তামিমা’র সাবেক স্বামী রাকিব হাসান। তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে উত্তরা পশ্চিম থা’নায় একটি জিডি করেছেন। উত্তরা পশ্চিম থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তাও (ওসি) শাহ মো. আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কিন্তু জিডির কপি প্রকাশ হওয়ার পর বেরিয়ে এসেছে তামিমা’র আরেক বিয়ের তথ্য। রাকিবের সঙ্গে সংসার করা অবস্থায় তামিমা আরেকটি বিয়ে করেছিলেন। সেখানে ছয় মাস সংসারও করেছিলেন।

রাকিবের করা জিডিতে এমন তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। জিডিতে বলা হয়েছে, ২০১১ সালে তামিমা তাম্মিকে বিয়ে করেন রাকিব। দাম্পত্য জীবনে তাদের একটি মে’য়ে রয়েছে। এর মধ্যেই তামিমা অন্য এক ছে’লের সঙ্গে স’ম্পর্কে জড়ায়। ছয় মাস সংসার করার পর ফিরে আসে। পরে রাকিবের সঙ্গে ক্ষমা চেয়ে পার পায়। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি নতুন করে নাসিরের সঙ্গে ছবি ভাই’রাল হলে রাকিব জানতে পারেন, তামিমা বিয়ে করেছেন।

জিডি করার কারণ উল্লেখ করে রাকিব বলেন, সংসারজীবনে বিবাদীর কাছে অনেক টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার রাখা আছে। এমনকি আমাকে তালাকও দেননি। টাকা ও অলঙ্কার চাইলে বিবাদী আমাকে ক্ষতি করবে বলে হু’মকি দিয়েছেন। আপাতত কোনো মা’মলা করবেন না বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

এদিকে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে রাকিব ও নাসিরের ফোন রেকর্ড। ওই ফোন রেকর্ডে রাকিবকে ফোন করে জিডি করার ব্যাপারটি ধামাচাপা দিতে বলেন নাসির। সেখানে রাকিবের প্রশ্ন ছিল আপনি কি তামিমা স’ম্পর্ক সব কিছু জানেন? উত্তরে নাসির হোসেন বলেন, তার সব কিছু জেনেশুনেই আমি তাকে বিয়ে করেছি। তার বাচ্চা আছে, তার আগেও বয়ফ্রেন্ড ছিল সবকিছুই আমি জানি। আপনার বৌ আপনার সাথে ভালো থাকলে নিশ্চয়ই আপনার ১১ বছরের সংসার ভেঙে আমা’র কাছে চলে আসতো না।

রাকিব হাসান ও তামিমা’র কাবিননামায় দেখা যায় ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তিন লাখ টাকা দেনমোহরে তাদের বিয়ে হয়। রাকিবের দাবি, গেল ১১ বছরে তার স্ত্রী’র পড়াশোনা থেকে শুরু করে জব সবক্ষেত্রেই তিনি সাহায্য করেছেন।

এই বিষয়ে জানতে ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার স্ত্রী’ তামিমা সুলতানার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *