রাতের আঁধারে বৃদ্ধা মাকে রাস্তায় ফেলে গেলো ছেলে

স্বামী মারা যাওয়ার পর তিন ছেলেকে লিখে দিয়েছেন সমস্ত জমি। দুই মেয়েকেও বিয়ে দিয়েছেন। পারিবারিক সিদ্ধান্তে ওই তিন ছেলে প্রত্যেকেই এক মাস করে খাওয়াবে মাকে। ছোট ছেলের কাছে এক মাস রাখার পর তাকে নিয়ে যায়নি বড় ছেলে। দুই দিন পার হওয়ার পর বিরক্ত হয়ে রাতের আঁধারে ওই বৃদ্ধা মাকে রাস্তায় ফেলে যায় ছেলে।

বুধবার (২ নভেম্বর) রাতে ঘটনাটি ঘটেছে নাটোর সদর উপজেলার ছাতনী ইউনিয়নের কেশবপুর গ্রামে। ভুক্তভোগী ওই বৃদ্ধার নাম তারাবানু। তিনি নাটোর সদর উপজেলার ছাতনী ইউনিয়নের কেশবপুর গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য নূরুল ইসলাম বাবু বলেন, ‘বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই বৃদ্ধা মাকে রাস্তায় ফেলে যায় তার ছোট ছেলে আজাদ। বিষয়টি জানতে পেরে মধ্যরাত পর্যন্ত মীমাংসার চেষ্টা করি। কিন্তু বড় ছেলে মানিক, মেঝ ছেলে হানিফ বা ছোট ছেলে আজাদ কেউই ওই বৃদ্ধাকে খাওয়াতে রাজি হয়নি। পরে বড় ছেলের ঘরের নাতির কাছে ১৫ দিন খাওয়ানোর আহ্বান করে গভীর রাতে বাসায় ফেরানো হয় তাকে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘স্বামী মারা যাওয়ার পর দুই বিঘা সম্পত্তি তিন ছেলেকে রেজিস্ট্রি করে দিয়েছেন ওই বৃদ্ধা। এখন তিনিই সকলের কাছে বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছেন।’

এ প্রসঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান তোফাজ্জ্বল হোসেন বলেন, ‘বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থলে গিয়েও কোনও সমাধান করতে পারিনি।’ তিনি দাবি করেন, পুরো ইউনিয়নের মধ্যে ওই তিন ভাইয়ের আচরণ সবচেয়ে রুক্ষ্ম। ওই বৃদ্ধার সুষ্ঠু একটি ব্যবস্থার জন্য প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ বলেন, ‘বিষয়টি জেনেছি। অভিযোগ পেলে ওই ছেলেদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *