এরকম অশোভন আচরণ আমাদের ছেলে-মেয়েদের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে’

মাদক মামলায় জামিন পেয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর কারামুক্ত হন চিত্রনায়িকা পরীমনি। বের হওয়ার সময় কারাফটকে তিনি উপস্থিত জনতাকে হাত তুলে শুভেচ্ছা জানান। সে সময় তার হাতে লেখা ছিল, ‘Dont ও লাভ চিহ্ন, এরপর me Bitch’ (ডোন্ট লাভ মি বিচ)।

মেহেদি রঙে হাতে লেখা সেই বার্তার জন্য ভক্তদের চোখে দৃঢ়চেতা পরীমনির অনেক প্রশংসা হয়েছে। তবে সমালোচনাও কম হয়নি। যারা তার জামিন চেয়ে আন্দোলনের জন্য মাঠে ছিলেন তাদেরও অনেকে আহত হয়েছিলেন পরীমনির এমন পাগলামিতে। তাদের মতে, কারাবাস শেষে পরীর আরও সংযত হওয়া উচিত ছিল। আলোচনা-সমালোচনা যাই হোক বিখ্যাত ইংরেজি গানের লাইনটি পরীমনিকে আন্তর্জাতিক মিডিয়ায়ও জায়গা করে দিয়েছিল।

আবারও পরীমনি হাজির হলেন হাতে মেহেদির রঙে নতুন লেখা নিয়ে। এবার তিনি লিখলেন, ‘… মি মোর’। বুধবার আদালতে হাজিরা দিতে যান তিনি। এসময় তার হাতে দেখা যায় এ লেখা। এরপর তিনি কিছু ছবি দিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, যেখানে তিনি সিগারেট হাতে বসে আছেন। তার সেই ছবি নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা।

পরীমণির এই ছবিগুলো নিয়ে মন্তব্য করেছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘একজন সেলেব্রিটির কাছ থেকে এরকম অশোভন আচরণ কাম্য নয়- আমাদের ছেলে মেয়েদের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে…।’

তিনি একটি টেলিভিশন চ্যানেলের নিউজের অংশ শেয়ার করে এ মন্তব্য করেন। দুই ঘণ্টার মধ্যে প্রায় ৯ হাজার মানুষ সেই পোস্টে রিয়্যাক্ট করেছেন। দুই হাজার জন বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করেছেন। শেয়ার দিয়েছেন ৫৬৫ জন।

তাহমিদ আহমেদ নামে একজন মন্তব্য করেছেন, ‘আমরা তরুণ সমাজ মারাত্মকভাবে আদর্শহীনতায় ভুগছি। যার ফলে এদের এতো ফ্যান ফলোয়ার।’

রুবিনা ইয়াসমিন নামে একজন সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারী সোহেল তাজের সেই পোস্ট শেয়ার করে লেখেন, তাকে এখনই থামানো উচিত। কারা তাকে থামাবেন! আসলে এ ইস্যু নিয়ে সামাজিকভাবে সবাই বিরক্ত! সমাজের জন্য তার কর্মকাণ্ডগুলো হাইকোর্টের নজরে আনা উচিত বলে তিনি মনে করেন।

এর আগে গত ৪ আগস্ট পরীমনিকে মাদক মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছিল। সেই মামলায় জামিন পেয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর কাশিমপুর কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান তিনি। এরপর থেকে তিনি জামিনে রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *